২০ দলে আসতে পারলেন না মুফতী ইজহার

67

বিশেষ প্রতিবেদক :
গত দুই দিন রাজনৈতিক অঙ্গনে গুঞ্জন ছিল ২০ দলীয় জোটের শরিকদের সঙ্গে আলোচনার পরই মুফতি ইজহারের নেতৃত্বাধীন নেজামে ইসলাম পার্টির ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। কিন্তু শরিকদের বাধায় আটকে গেল সেই প্রক্রিয়া। আপাতত মুফতি ইজহারের যোগ দেয়া হচ্ছে না বিএনপি জোটে।

রবিবার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে ২০ দলীয় জোটের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মূলত খালেদা জিয়ার মামলার রায় নিয়ে আলোচনা হলেও মুফতি ইজহারের ২০ দলে যোগ দেয়ার প্রসঙ্গটিও উঠে আসে। তখন শরিকদের কেউ তার অতীত কর্মকাণ্ড নিয়ে খালেদা জিয়ার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। পরে তার বিষয়টি কিছুদিন পর্যবেক্ষণ করার কথা বলেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নেজামে ইসলাম পার্টির জোটে যোগদানের বিষয়টি উত্থাপন করেন।

এ সময় এর বিরোধিতা করেন খেলাফত মজলিসের আমির মাওলানা ইসহাক।

এসময় তিনি বলেন, মুফতি ইজহার বিএনপির সঙ্গেও ছিলেন, আবার নৌকার সঙ্গেও ছিলেন। যদিও তিনি খালেদার উদ্দেশ্যে বলেন, ‘ম্যাডাম জোটে কাকে নেবেন বা নেবেন না এটা আপনার ব্যাপার। তবে নেজামে ইসলাম পার্টির অনেক সমস্যা রয়েছে।’

এ সময় খালেদা জিয়া বলেন, এসব তো জানি না। ঠিক আছে আমরা আরো খোঁজখবর নেব।

পরে মাওলানা ইসহাকের সঙ্গে যোগ দেন জমিয়তে উলামা ইসলাম (ওয়াক্কাস) সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মহিউদ্দীন ইকরাম। তিনিও মুফতি ইজহারের জোটে যোগ দেওয়ার প্রস্তাবের বিরোধিতা করেন।

সূত্র আরো জানায়, শুরুতে মুফতি ইজহারের বিষয়ে বিরোধিতায় সঞ্চালনার দায়িত্বে থাকা জোটের সমন্বয়ক মির্জা ফখরুল পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘আপনারাই তো ম্যাডামকে বলেছেন যে, তাকে নিতে হবে।’

এক্ষেত্রে লক্ষণীয়— গত বছরের ডিসেম্বর থেকেই নেজামে ইসলাম পার্টিকে জোটে আনতে উদ্যোগ নেন জোট শরিক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক ও জোটের আরেক শরিক ইসলামী ঐক্যজোট (একাংশ) চেয়ারম্যান মাওলানা অ্যাডভোকেট আবদুর রকিব।

জানা গেছে, মাওলানা ইসহাকের তীব্র বাধার পর তারা দু’জনই মুফতি ইজহারের পক্ষে কোনও বক্তব্য দেননি। এ কারণে অন্য শরিকদের বক্তব্যের আগেই বিষয়টি চাপা পড়ে।

শরিকদের একজন নেতার ভাষ্য, ‘মুফতি ইজহারের বিষয়টি পাশ কাটিয়ে যাওয়া হয়েছে।’

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মাওলানা ইসহাক বলেন, ‘বৈঠকে আলোচনার বিষয়ে মহাসচিব ব্রিফ করবেন। এরপর আপনারা জানতে পারবেন।’

উল্লেখ্য, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটে নতুন শরিক দল হিসেবে যোগ দিতে শীর্ষ নেতাদের নিয়ে জোটনেত্রী খালেদা জিয়ার সঙ্গে শনিবার রাতে সাক্ষাৎ করেছিলেন মুফতি ইজহারুল ইসলাম চৌধুরী।

নেজামে ইসলাম পার্টি একটি অনিবন্ধিত রাজনৈতিক দল। দলটির একটি অংশ মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামীর নেতৃত্বে ইসলামী ঐক্যজোটে আছে। তিনি (নেজামী) দলটির ওই অংশের চেয়ারম্যান। মুফতি ইজহার চার দলীয় জোটের সময় ইসলামী ঐক্যজোটের অন্যতম নেতা ছিলেন। পরে ইসলামী ঐক্যজোট ভেঙে গেলে তিনিও ঐক্যজোটের একটি অংশের চেয়ারম্যান হিসেবে নিজেকে দাবি করতেন।

জোটের শরিক ডেমোক্রেটিক লীগ-ডিএল সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি বলেন, ‘মূলত বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায় নিয়ে কথা হয়েছে বৈঠকে। ফাঁকে মুফতি ইজহারের বিষয় আসলেও কয়েকজন প্রতিবাদ করেন। পরে কোনো সিদ্ধান্ত আর এ বিষয়ে হয়নি।

তাহলে কি জোটে তার যাওয়া হচ্ছে না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মনে হয় বিষয়টি ঝুলে গেছে।

(লাইভবার্তা২৪ডটকম /জিএম/ জানুয়ারী ২৯, ২০১৮)

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY