সরকারের নির্দেশে বিচার ছাড়াই রায়ের জন্য চাপ দিচ্ছে রাষ্ট্রপক্ষ : রিজভী

9

নিজস্ব প্রতিবেদক :
সরকারের নির্দেশে বিচারকাজ ছাড়াই খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া চ্যারিটেবল মামলার রায় দেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা এমন অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেছেন, ‘অসাংবিধানিকভাবে কারাগারে আদালত বসিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মামলার রায় চায় রাষ্ট্রপক্ষ। গতকাল রাষ্ট্রপক্ষ আদালতকে বলেছে ‘যেহেতু খালেদা জিয়া আদালতে আসতে চাচ্ছেন না, তাই মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রায় ঘোষণার দিন ধার্য করুন’। আদালতের কার্যক্রম শেষ করতে লিখিত আবেদনও দিয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। রাষ্ট্রের অবৈধ কর্তৃপক্ষ আওয়ামী সরকার চক্রান্তমূলকভাবেই দেশনেত্রীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে তাঁকে সাজা দিয়েছে সেটি আবারও প্রমাণ করলেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।’

শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী অভিযোগ করেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে গুরুতর অসুস্থ। তিনি হাত-পা নাড়াতে পারেন না, হাঁটাচলা করতে তাঁর মারাত্মক অসুবিধা হয়। চিকিৎসক’রা বলেছেন-তাঁর বাম হাত ও পা প্রায় অবশ হয়ে পড়েছে। গুরুতর অসুস্থতার কারণে আদালতে যেতে পারবেন না, বেগম জিয়া সেকথাটিই বলেছেন। কিন্তু রাষ্ট্রপক্ষ জোর করে আদালতকে ব্যবহার করে বিচারকার্য ছাড়াই রায় দেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে।’

‘বিএনপি চেয়ারপারসন গুরুতর অসুস্থ, সেকথাটি আদালতকেই তিনি বলেছেন, কিন্তু আদালত তো তাঁর চিকিৎসার ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা দিলেন না। কারণ সেই আদালত সরকারের হুকুমের বাইরে যেতে পারবেন কি না সেটি নিয়ে জনগণ সন্দেহ পোষণ করে। যেখানে দেশের প্রধান বিচারপতিকে বন্দুকের নলের মুখে দেশ ছাড়তে হয়, সেখানে নিম্ম আদালত সরকারের চাপ প্রতিহত করে ন্যায় বিচার করতে পারবেন কী ? এখনও পর্যন্ত সেই দৃষ্টান্ত আমরা দেখিনি।’

রিজভী বলেন, আওয়ামী সরকার ভীরু ও কাপুরুষ, তাদের কোনো সাহস নেই। যেকোনো মুহূর্তে পিছলে যাবার ভয়ে তারা পুলিশের ওপর নির্ভর করে মামলা হামলা ও গ্রেফতারের শৃঙ্খলে জনগণকে বন্দী করতে সর্বশক্তি নিয়োগ করেছে। জনগণ মনের ক্ষোভ চেপে রাখতে অধৈর্য হয়ে উঠেছে, তাই সর্বত্র প্রতিবাদের সোচ্চার ধ্বণী উচ্চারিত হচ্ছে। যেকোনো মুহূর্তে ধেয়ে আসা জনগণের ঘুর্ণিঝড় রুদ্ররুপ ধারণ করবে।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘পোলিও টিকা খাওয়ানোর একটি শ্লোগান আমরা অনেকদিন যাবৎ শুনে এসেছি ‘বাদ যাবে না একটি শিশু’।এখন সরকার এই শ্লোগানটি ভিন্ন অর্থে প্রয়োগ করছে বিএনপি নেতাকর্মীদের ওপর। অর্থাৎ ‘মামলা-হামলায় বাদ যাবে না একটিও বিএনপি নেতাকর্মী’।

তিনি আরও বলেন, ‘গতকাল দিনে ও রাতে পুলিশ মামলা-হামলার বন্যা বইয়ে দিয়েছে। মতিঝিল থানায় বিএনপি জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, বাবু গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আমিনুল হক, সিনিয়র যুুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী ও আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া এবং পল্টন থানায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আব্দুস সালামসহ অসংখ্য নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা দায়ের করা হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়াপরসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

লাইভবার্তা/ জিএম / ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY