শিশু ধর্ষণের পর হত্যা, একজনের মৃত্যুদণ্ড

24

l2.

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

ময়মনসিংহের চুরখাই এলাকায় সাত বছরের শিশু সোনিয়া আক্তারকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে রফিকুল ইসলাম কাজলকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। একইসঙ্গে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মো. হেলাল উদ্দিন এ রায় দেন।



রায়ের বিবরণে জানা যায়, ময়মনসিংহ সদর উপজেলার চুরখাই দড়িভাবখালী গ্রামের পত্রিকার হকার চাঁন মিয়া প্রতিদিনের মতো ২০১২ সালের ২৩ জুন সকালে বাড়ি থেকে শহরের উদ্দেশে বেরিয়ে যান। পরে বিকেলে বাড়ি ফিরে ৭ বছরের মেয়ে সোনিয়া আক্তারকে খুঁজে পান না। পরেরদিন সকালে পার্শ্ববর্তী সুতিয়াখালি নামাপাড়া গ্রামের একটি পুকুরের পাশের জঙ্গল থেকে সোনিয়ার লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রত্যক্ষদর্শী ও চাঁন মিয়ার আত্মীয় ওই গ্রামের রিপা আক্তারসহ কয়েকজন সোনিয়া আক্তারকে সকালে একই গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে রফিকুল ইসলাম কাজলের সঙ্গে যেতে দেখেন। তাদের ধারণা রফিকুল ইসলাম কাজল সোনিয়াকে প্রলোভন দেখিয়ে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণের পর বাঁশের টুকরা দিয়ে মাথায় ও কপালে আঘাত করে হত্যা করে লাশ ফেলে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় শিশুর বাবা বাদী হয়ে রফিকুল ইসলাম কাজলকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে ৮ জনের সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে আদালতের বিচারক এ রায় ঘোষণা করেন।

জ/ ০০২

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY