বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচাতে ৬ দফা দাবি

80

k

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

রাজধানী ঢাকার প্রাণ বুড়িগঙ্গা নদীকে বাঁচাতে ৬ দফা দাবি আদায়ে তিন দিনের অবস্থান ও সমাবেশ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলন।

দূষণ ও দখল থেকে নদী রক্ষায় বুড়িগঙ্গায় সদরঘাটে আগামী ১২ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) বিকেল ৫টা থেকে ১৪ অক্টোবর (শনিবার) বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ অবস্থান ও সমাবেশ পালিত হবে।

বৃহস্পতিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন সংগঠনের নেতারা।

সভায় বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি মো. আনোয়ার সাদত বলেন, বুড়িগঙ্গা না বাঁচলে ঢাকা বাঁচবে না। ঢাকা না বাঁচলে দেশই অচল। আমরা সরকারকে জানান দিতে চাই, দাবি আদায়ে আমরা কঠোর অবস্থানে যাচ্ছি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, আমরা জানতাম বুড়িগঙ্গার তীরে ঢাকা অবস্থিত। কিন্তু এর কোনো চিত্র আর চোখে পড়ে না। ঢাকা হারিয়ে যেতে বসেছে দখল ও দূষণে। বুড়িগঙ্গা বাঁচানো এখন সময়ের দাবি।

বুড়িগঙ্গা দূষণের কারণে শুধু মৎস্য খাতে বছরে ১ লাখ কোটি টাকা ক্ষতি হচ্ছে উল্লেখ করে নদী বাঁচাতে তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান ইমামুল হক।

সভায় ৬ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়। দাবিগুলো হলো- বুড়িগঙ্গায় সুপেয় পানি প্রবাহ নিশ্চিত করতে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পয়োবর্জ্য, প্লাস্টিক ও ডাইং কারখানার কঠিন বর্জ্য নদীতে ফেলা সম্পূর্ণ বন্ধ করে তা দিয়ে জৈব সার ও বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহারের পদক্ষেপ নিতে হবে, বুড়িগঙ্গাসহ তুরাগ, বালু, বংশী, শীতলক্ষ্যা পাশ্ববর্তী শিল্পাঞ্চলে ‘কেন্দ্রীয় বর্জ্য শোধনাগার’ স্থাপনের ব্যবস্থা করতে হবে।

দখল রোধে সি এস ম্যাপ অনুযায়ী সীমানা চিহ্নিত করে সকল অবৈধ স্থাপনা অপসারণ ও ফুটপাতসহ পার্ক স্থাপন করতে হবে, হাইকোর্টের রিট নম্বর ৩৫০৩/২০০৯ এর রায় বাস্তবায়ন করতে হবে। নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে পরিকল্পিতভাবে খনন করে এর তলদেশের কঠিনস্তর ও বালি অপসারণ করা। ঢাকার জলাবদ্ধতা নিরসন কল্পে দখল ও ভরাট হয়ে যাওয়া ৪৭টি খাল উদ্ধার করে তা বুড়িগঙ্গার সঙ্গে সংযোগ সাধন করতে হবে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বুড়িগঙ্গা বাঁচাও আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী ও আহ্বায়ক মিহির বিশ্বাস। পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনের অর্থ সম্পাদক তাজুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা বাচ্চু মিয়া, সহ-সভাপতি ড. মোহসিন আলী মন্ডল প্রিন্স।

জ/০০৫ 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY