নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে পাক সরকারকে হুঁশিয়ারি

14

l7

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ

গত মাসেই জামাত-উদ-দাওয়া প্রধান হাফিজ সইদকে গৃহবন্দি করার পাশাপাশি তার বিদেশ যাত্রার ওপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল পাকিস্তান সরকার। শুধু হাফিজ একা নয়, আরও ৩৭ জনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। কিন্তু পাক সরকারের এই আদেশ যে অপছন্দ জামাত নেতার, ফের একবার সেটা প্রমাণিত হল।

একটি চিঠিতে পাক সরকারকে কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়ে হাফিজ এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে বলেছে। পাশাপাশি নিজেকে নির্দোষও দাবি করেছে। পাক অভ্যন্তরীন মন্ত্রী চৌধুরি নিসার আলি খানকে লেখা চিঠিতে হাফিজ লেখেন, ‘২০১৭ সালের ৩০ জানুয়ারি ৩৮ জনের ওপর যে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে অবিলম্বে সেটা তুলে নেওয়া হোক।’



২০০৮ সালে মুম্বাই হামলায় মারা গিয়েছিলেন ১৬৬ জন। তারপর থেকেই হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে পাকিস্তান যাতে ব্যবস্থা নেয়, তার জন্য তদ্বির করে যাচ্ছিল ভারত। এরপরেই গত ২৭ জানুয়ারি হাফিজ সইদ-সহ আরও চারজনকে ৯০ দিনের জন্য গৃহবন্দি করে পাক সরকার। পাশাপাশি চৌধুরি নিসার খান জামাত-উদ-দাওয়া এবং ফাল্লাহ-এ-ইনসানিয়ত গোষ্ঠীর ওপর নজরদারি চালানোরও নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু পাক সরকারের এই নির্দেশ মানতে চায়নি জামাত। তাদের তরফ থেকে বলা হয়েছিল, ‘জামাত পাকিস্তানে কোনও জঙ্গি কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত নয়। এমনকী হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে কোনও জঙ্গি কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত থাকার কোনও প্রমাণও নেই সরকারের কাছে।’

হাফিজ সইদের গৃহবন্দি হওয়ার পর থেকেই কার্যত উত্তপ্ত হতে শুরু করে পাকিস্তানের অভ্যন্তরীন পরিস্থিতি। জামাত নেতাকে অবিলম্বে মুক্তি না দিলে দেশজুড়ে প্রতিবাদ আন্দোলনে শামিল হওয়ারও হুমকি দিয়েছিল জামাত-উদ-দাওয়া ও অন্যান্য মুসলিম সংগঠনগুলি৷ তাকে গৃহবন্দি করার পিছনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হাত রয়েছে বলেও অভিযোগ করে চরমপন্থী পাক সংগঠনগুলি৷ পাক জঙ্গি নেতা সঈদ সালাহউদ্দিনও পাক সরকারকে হুমকি দিয়ে জানিয়েছে, ভারতকে খুশি করতে কাপুরুষের মতো আচরণ করছে পাকিস্তান।

জ/ ০০৭

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY