খালেদা জিয়ার জামিনে আংশিক খুশি বিএনপি : রিজভী

13

নিজস্ব প্রতিবেদক :
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিনে বিএনপি আংশিক খুশি বলে জানিয়েছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মুক্তি পেয়ে জেলগেট থেকে তার বাসায় গেলে আমরা পুরোপুরি খুশি হবো।’

সোমবার (১২ মার্চ) নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘বেগম জিয়ার মুক্তিতে অন্য কোন বাধা থাকার কথা নয়। তাঁর (খালেদা জিয়া) আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকনের সাথে কথা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন, আগামীকাল সকালের মধ্যে কাগজপত্র নিম্ন আদালতে পৌঁছাবে। এরপর তিনি (বিএনপি চেয়ারপারসন) আইনি প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হলে বের হবেন।’

খালেদা জিয়ার মুক্তি পেলে তাঁর মুক্তির দাবিতে যেসব কর্মসূচি বিএনপি ঘোষণা করছে, সেগুলো অব্যাহত থাকবে কিনা- জানতে চাইলে রিজভী বলেন, নতুন করে রিভিউ করবো। তবে ফিরিয়ে আসা না পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না। কর্মসূচিগুলো থাকবে কিনা তিনি (খালেদা জিয়া) ফিরিয়ে আসার পরেই তাঁর সঙ্গে আলোচনা করবো। আর কর্মসূচিগুলো থাকলেও সেই কর্মসূচিতে বেগম জিয়া অংশগ্রহণ করবেন।’

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, ‘ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও তেজগাঁও থানা ছাত্রদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন মিলনকে গত ৬ মার্চ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে ফেরার পথে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরের দিন ৭ মার্চ রমনা থানা পুলিশ তাকে রিমান্ডে নেয়। রমনা থানা পুলিশ রিমান্ডের নামে তার ওপর বর্বরোচিত ও নিষ্ঠুর নির্যাতন চালানোর পর পরবর্তীতে তাকে ডিবি কার্যালয়ে রিমান্ডে নেয়া হয়। একটানা তিন দিন রিমান্ডে নিয়ে জাকির হোসেন মিলনের ওপর ভয়াবহ পাশবিক নির্যাতন চালানোর পর মৃতপ্রায় অবস্থায় তাকে গতকাল কারাগারে পাঠানো হয় সেখানেই তিনি মৃত্যবরণ করেন।’

তিনি বলেন, ‘সরকারের টার্গেট একটাই-তাহলো তীব্র পাশবিক নিপীড়নের মাধ্যমে প্রতিবাদী তরুণসমাজকে ক্ষতবিক্ষত করে ক্ষমতায় টিকে থাকা, আর এজন্যই সরকার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে মৃত্যু পরোয়ানার হুকুম দিয়ে মাঠে নামিয়ে দিয়েছে। বেছে বেছে বিএনপি এবং অঙ্গ সংগঠনের তরুণ নেতাদের গ্রেফতার করে রিমান্ডের নামে নির্যাতন চালানো হচ্ছে। গণতন্ত্রের জন্য তারুণ্যের দ্রোহকে মাটিচাপা দিতেই ক্রসফায়ারের পাশাপাশি এখন রিমান্ডের নামে মেরে ফেলার সিরিয়াল শুরু হলো।’

তিনি আরও বলেন, ‘রিমান্ডে নিয়ে পুলিশের নির্দয় ও পৈশাচিক নির্যাতনে জাকির হোসেন মিলনকে কারাগারে চিকিৎসা না দিয়ে এভাবে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়ার অমানবিক ঘটনায় নিঃসন্দেহে বলা যায়- বর্তমান ক্ষমতালোভী সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকা নিশ্চিত করতে বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদেরকে নির্যাতন চালিয়ে নানাভাবে হত্যা করার পাশাপাশি রিমান্ডে নির্যাতন করে হত্যার আজ আরেকটি নতুন খাতা খুললো।’

রিজভী বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক কাজী আবুল বাশারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে এখন ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আমি দলের পক্ষ থেকে কাজী আবুল বাশারকে গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি অবিলম্বে তার নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।’

বেসরকারি বিমান সংস্থা ইউএস-বাংলার একটি উড়োজাহাজ নেপালের কাঠমুন্ডু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্রিভুবনের রানওয়েতে বিধ্বস্ত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘উড়োজাহাজে যাত্রী ও ক্রুদের মধ্যে ১৭ জনকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। আমরা এখনও জানি না বাদ বাকি যাত্রীর কী অবস্থা হয়েছে। আমি বিএনপির পক্ষ থেকে এই ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি এবং আল্লাহ’র কাছে প্রার্থনা করছি উড়োজাহাজের যাত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকেই যেন মহান আল্লাহ হেফাজত করেন।’

সংবাদ বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুর ইসলাম হাবিব, সহ-দপতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, বেলাল আহমেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

(লাইভবার্তা২৪ডটকম /জিএম/ মার্চ ১৩, ২০১৮)

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY