‘আসল’ আম্মার ১০৫০০ শাড়ি, ৭৫০ জোড়া জুতা, ৫০০ চশমার কি হবে !

639

হাসান বাবু/লাইভ বার্তাঃ

jayalalith

আম্মা ডাকটা ডেকেছিলেন ভারতের সুপারস্টার মিঠুন চক্রবর্তী ! কোথায় ? হ্যাঁ, সিনেমায়। মধুর এই ডাকটি তিনি ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার প্রাপ্ত সিনেমা ‘আগ্নিপাথ’ এ অমিতাভ বচ্চনের মায়ের চরিত্রে রুপদানকারী রোহিনি হোত্তাংগিরিকেই ডেকেছিলেন ! এমন ডাকে মিঠুনও পেয়েছিলেন জাতীয় পুরষ্কার ! মিঠুন ওই ছবিতে তামিল নাড়ুর এক গ্রাম্য যুবকের চরিত্রে অভিনয় করে আজো অনেকের মনের মধ্যে আছেন। কিন্তু তামিল নাড়ুর সংস্কৃতি বোঝাটাও তাঁর জন্য সহজ ছিল- কারণ মিঠুনের হোটেল ব্যাবসাটা আসলেই তামিল নাড়ুকে ঘিরেই ! সেখানে ‘আম্মা’ সম্বোধনের রেওয়াজ আছে। ঠিক সে কারণেই একসময়ের বলিউড কুইন জয় ললিতাও বনে গিয়েছিলেন রাজ্যের অধিবাসীদের কাছে আম্মা ! কারণ তিনি দুর্নীতি হোক আর সজ্জন চরিত্রের হন সেটা বড় বিষয় নয়, তিনি ছিলেন সমাজবাদী দলের সামাজিক অভিভাবক হতে হতে  রাজনৈতিক জনপ্রিয় নেত্রী। তাই তো সদ্য প্রয়াত এই আম্মার জন্য আত্মাহুতি দিয়েছেন প্রায় ৭৭ জন। তিনি যে ওই রাজ্যের আসল আম্মা !

এদিকে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মৃত্যুর পর তার বিরুদ্ধে মামলাগুলোর কার্যক্রম স্থগিত হয়ে যেতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। কিন্তু অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় আদালত তার যে বিপুল পরিমাণ ব্যবহার্য জিনিষ নিজেদের জিম্মায় নিয়েছিল, তা এখনো ফেরত দেয়নি।

জয়ললিতার দল এআইডিএমকের একজন সিনিয়র নেতা বলেছেন, তারা আশা করছেন আদালত অচিরেই এসব সামগ্রী ফেরত দেবেন। যাতে জয়ললিতার স্মরণে বানানো জাদুঘরে তারা এগুলো রাখতে পারেন।

কর্নাটকের সরকারি কৌসুলি বি ভি আচার্য জানিয়েছেন, ২০১৭ সালে এ মামলার রায় ঘোষণা করার কথা আছে। যেহেতু এ মামলায় আরো অভিযুক্ত আছেন, তাই মামলার কার্যক্রমও চলবে।

কর্নাটকের আরেক সরকারি কৌসুলি জানান, “মামলায় যদি জয়ললিতা দোষী প্রমাণিত হন, তাহলে এসব সম্পদ আদালত বাজেয়াপ্ত করে তামিলনাড়ু সরকারের কাছে হস্তান্তর করবে।”

১৯৯৬ সালে ইনকাম ট্যাক্স অফিসাররা জয়ললিতার এসব সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার পর থেকেই সেগুলো কর্নাটক পুলিশের হেফাজতে রয়েছে। ২০০২ সালে কর্নাটক থেকে তামিলনাড়ুতে আসার পর রাজ্যের  সিটি সিভিল কোর্টের একটি রুমে  ১০,৫০০ শাড়ি, ৭৫০ জোড়া জুতা, ৫০০ চশমা, সাড়ে তিন কোটি রুপি মূল্যের ২১.২৮ কেজি স্বর্ণ, ৩.১২ কোটি রুপি মূল্যের সিলভার, দুই কোটি রুপি মূল্যের ডায়মন্ড জব্দকৃত মালামাল রাখা আছে।

১৯৯৬ সালে বর্তমান বিজেপি নেতা সুব্রামানিয়ান স্বামী জয়ললিতার বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের ওই মামলাটি করেন।
গত ৫ ডিসেম্বর তামিলনাড়ু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী  জয়ারাম জয়ললিতা মারা যান। নিজের রাজ্যে তিনি ছিলেন প্রায় দেবীতুল্য।
যেটাই হোক, মানুষ রাজনীতিক হিসাবে না হোক- বলিউডের এই চিরকুমারী নায়িকার জীবনের শাড়ী, চশমা ও জুতা দেখতে ব্যকুল থাকবেই বলে মত অনেকের। ভীড়তে পারেন পর্যটকেরাও । তবে কি যাদুঘরই হবে আম্মার শখের সাজের সামগ্রির আসল ঠিকানা ? আসল মায়ের আসল ঠিকানা ! যাদুঘরেই থাকুক না কেন তা !
হা/লা/১৭০০ 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY