আদরের ভাই কেন হলেন তিনি ?

2140

হাসান বাবু/লাইভ 

mqdefault

এবার নারায়ণগঞ্জ রাজনীতির নতুন খবর। সংবাদ সম্মেলন করে এই অঞ্চলের খানদানী রাজনীতিক শামীম  ওসমান ভাই বনে গেলেন সেলিনা হায়াত আইভির। যিনি লড়ছেন নাসিক নির্বাচনের আবারো মেয়র প্রার্থী হয়ে। দুই চির শত্রুর এমন ভাই-বোন সমাচার এখন টক অব দ্য কান্ট্রি ! কেন এমন কিছুই হলো- সে প্রশ্নের আপাত উত্তর, শেখ হাসিনা ! যিনি এই নাসিক নির্বাচন ঘিরে দুইজনকে সামনে রেখে বলেছিলেন, আইভি আমাদের প্রার্থী। সেই ভাল স্ট্রাইকার। আর  শামীমের কাজ হবে তাঁকে বিজয়ী করে আনা। খুব সম্ভবত এখন নাসিকের হাওয়া সেই নৌকার দিকেই যাচ্ছে। শামীম নিজেও সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, আইভির হাতে নৌকা- আমার হাতে বৈঠা, সে বৈঠা নগরের বাসিন্দার কাছেও আছে। কিন্তু রাজনৈতিক সমীকরণে শামীমের এমন উদারতার আসল নেপথ্যে তো কারণ তো একটা রয়েছেই। গুঞ্জন ছিল, তিনি রাজনীতি ছেড়ে দিবেন। কিন্তু সেই শামীম এখন বলছেন, শনিবার সংসদ সদস্য হতে পদত্যাগ করে বোন আইভির জন্য নেমে পড়বো। আইভি আবার প্রতিউত্তরে বলেছেন, সেটা করার দরকার কি ! আইন মেনে পাশে থাকলেই তো চলে। অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থী সাখাওয়াতের পাশে  দলের নেতাকর্মীরা আছেন, চলছে প্রচারণা- কিন্তু নাসিক নির্বাচনের ফলাফল কোন দিকে যাবে তা নিয়ে আছে আলোচনা। বেগম খালেদা জিয়াও শোনা যাচ্ছে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিবেন। তবে এই নির্বাচনে রাজনৈতিক একটা খেলা হতে পারে বলে বিশ্লেষকেরা মনে করছেন। সব কিছুর জন্য ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে উৎসুক দেশবাসীর।

এদিকে শামীম ওসমানের অতি আদরের ভাই হয়ে পড়াকে গভীর বিশ্লেষণে দেখার সুযোগ আছে। যদিও তিনি শুক্রবার আইভির জন্য ‘নৌকা শাড়ি’ উপহার দিয়ে বার্তা দিয়েছেন, এই শহরে বিএনপির ঠায় হবে না। তবে অতি সমালোচকেরা বলছেন, শামিমের এমন রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে দুটো দিক থাকতে পারে। এক, সত্যই তিনি আইভির পক্ষে কাজ করে তাঁকে বিজয়ী করে এনে হাসিনা সরকারের মন্ত্রী সভায় নিজের নাম দেখতে চাওয়ার অভিলাষে আছেন- কারণ গেলো দুই বছরে শামীম শহর রাজনীতিতে নতুন নতুন সৎ চিন্তার মাধ্যমে নগরে এবং দেশের কাছে নিজের ইমেজ বাড়িয়েছেন। যেখানে তিনি মাদক বিরোধী অভিযান ও যানজট নিরসনে নিজেই রাস্তায় নেমে পড়ার উদাহরণে ছিলেন। দুই, কার্যত তিনি আইভির পক্ষে কাজ না করে একটা দূরদৃষ্টিসম্পন্ন রাজনীতির প্রশ্রয়ে একজন চরিত্র মাত্র, যা সময়ে কথা বলবে।

বিএনপি প্রার্থী সাখাওয়াত কি করতে পারেন এই নির্বাচনে তা নিয়েও শহরে চলছে আলোচনা। অনেকেই অভিমত রাখছেন, নির্বাচনের দিন দুপুরের দিকে এই প্রার্থী নির্বাচন হতে সরে যাওয়ার ঘোষণা রাখতে পারেন। তবে শামীম ওসমান ও তাঁর দ্বিতীয় ছকে আইভি কুপোকাতের একটা বন্দোবস্ত কেবল সাখাওয়াতকে লাইম লাইটে আনতে পারে।

সবকিছু নিয়েই নাসিক ইস্যুতে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফর পিছিয়ে দেয়া, তাঁর একান্ত সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলের রহস্যময় মৃত্যু, বাতিল সফরকে কেন্দ্র করে উল্টো ভারতের ধর্না- সব মিলিয়েই রাজনীতির একটা গুমট পরিবেশ বিরাজ করছে। বিএনপির বড় একটা অংশ বলছে, তাঁরা খুব ফুরফুরে মেজাজে আছে। এই ফুরফুরে অপরদিকে ক্ষমতাসীনদের গুমট অবস্থায় আসলেই কি হতে চলেছে তা নিয়েও নগর ভাবনা ছাড়িয়ে রাষ্ট্র পাড়ায় এগোচ্ছে- হয়তো কিছু একটা হতে যাচ্ছে। তবে সব ছাপিয়ে প্রকাশ্যের আলোচনায় ‘রাজনৈতিক ভাই-বোন’ হওয়াটাই এখন সবার মুখে মুখে।

 

হা/লা/১৭০০  

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY